Breaking News

পূর্ণেন্দু পত্রী

পূর্ণেন্দু পত্রী (Purnendu Patri) একজন বিখ্যাত বাঙালি কবি। বাংলা সাহিত্যে কথোপকথন কবিতা রচনায় তিনি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করছেন। কথোপকথন কবিতার নাম আসলে সর্বপ্রথম যার নামটি উচ্চারিত হয় তিনিই হলে পূর্ণেন্দু পত্রী । তিনি ছিলেন একাধারে কবি, ঔপন্যাসিক, প্রাবন্ধিক, শিশুসাহিত্যিক, সাহিত্য গবেষক, চিত্র-পরিচালক এবং প্রচ্ছদশিল্পী। পূর্ণেন্দু পত্রী ১৯৩১ সালের ২ ফেব্রুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের হাওড়ায় জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৯৭ সালের ১৯ মার্চ মৃত্যুবরণ করেন।

কথোপকথন – ২৮ – পূর্ণেন্দু পত্রী

– আমার আগে আর কাউকে ভালোবাসনি তুমি? – কেন বাসব না? অনেক। কৃষ্ণকান্ডের উইলের ভ্রমর যোগাযোগের কুমু পুতুলনাচের ইতিকথার কুসুম অপরাজিত –র – ইয়ার্কি করো না। সত্যি কথা বলবে। – রোগা ছিপছিপে যমুনাকে ভালোবেসেছিলাম বৃন্দাবনে পাহাড়ী ফুলটুংরীকে ঘাটশিলায় দজ্জাল যুবতী তোর্সাকে জলপাইগুড়ির জঙ্গলে আর সেই বেগম সাহেবা, নীল বোরখায় জরীর ...

Read More »

কথোপকথন – ২৬ – পূর্ণেন্দু পত্রী

—আমার চিঠিটার জবাব কই? যদি না এনে থাকো তাহলে আজ তুলবো দুই হাতে এমন ঝড় বসন উড়ে যাবে চণ্ডীগড় খোঁপার খিল খুলে বন্দী চুল হানবে চোখে মুখে আক্রমণ। কেউটে সাপ হবো। সাত পাকে নগ্ন দৃশ্যের চূড়া ও তল জড়াবো, এমনই সে আলিঙ্গন ভাঙবে হাড়-গোড়। আমার কি? —এমন ছটফটে ধৈর্যহীন মানুষ ...

Read More »

কথোপকথন – ২০ – পূর্ণেন্দু পত্রী

-ইলাস্ট্রেটেড উইকলিতে তোমার তিনটে কবিতা ছাপা হল আমায় কিন্তু বলনি। মধুমিতার সঙ্গে দেখা এলিয়াসে,সেই আমাকে বলল। শুনে এমন রাগ হল যে ভেবেছিলাম বন্ধ করব দেখা। তুমি কোথায় কী লিখেছো তা শুনতে হবে হাটের লোকের মুখে ? সেই রাগেতেই চিঠির জবাব লিখেও তাকে কবর দিয়ে এলাম লেপ-তোশকের নীচে। -উপরে কাঁটা নীচে ...

Read More »

কথোপকথন -১৯ -পূর্ণেন্দু পত্রী

একটা মজার গল্প তোমায় বলতে ভুলে গেছি । সেদিন ছিল বেস্পতিবার। আকাশ ছুঁড়ে মারল ঘুর্ণিঝড় আমিতাভর সঙ্গে হঠাৎ কলেজ ষ্ট্রীটে দেখা হতেই,এই যে শুভঙ্কর কেমন আছিস,এটা ওটা দু-দশ কথার পর আসল প্রশ্ন,এখনো সেই নন্দিনীতেই ডুবে আছিস নাকি ? ইদানিং যা লেখা-টেখা বেরোচ্ছে তা পড়লে মনে হয় । নন্দিনী তোর আকাশ ...

Read More »

কথোপকথন – ২৫- পূর্ণেন্দু পত্রী

– হাত-ঘড়িটা কি ছোঁ মেরেছে গাংচিলে? শকুন্তলার আংটির মত গিলেছে কি কোনো রাঘব বোয়াল-টোয়াল? – কেন? আসবার কথা কখন, এখন এলে? বসে আছি যেন যুগযুগান্ত, ভাঙা মন্দিরে উপুড় শালগ্রাম। চা খেলাম, খেয়ে সিগারেট, খেয়ে আবার – বেয়ারা, কফি! আর ঘড়ি দেখা, এবং যে-কোনো জুতোর শব্দে চমকে চমকে ওঠা। মনে হচ্ছিল ...

Read More »

কথোপকথন –২৩ -পূর্ণেন্দু পত্রী

-কাল তোমাকে ভেবেছি বহুবার কাল ছিল আমার জন্ম দিন। পরেছিলাম তোমারি দেওয়া হার । – আমার হার কি আমার চেয়েও বড়? বালিকে তুমি বিলোলে আলিঙ্গন সমুদ্রকে দিলে না কুটো খড়ও। -বাতাস ছিল , বাতাসে ছিল পাখি আকাশ ছিল , আকাশে ছিল চাঁদ তাদের বললে, খবর দিত নাকি? – আজ্ঞে মশাই ...

Read More »

কথোপকথন -২২ -পূর্ণেন্দু পত্রী

তেরোই জুলাই কথা দিয়েছিলে আসবে। সেই মত আমি সাজিয়েছিলাম আকাশে ব্যস্ত আলোর অজস্র নীল জোনাকি। সেই মত আমি জানিয়েছিলাম নদীকে প্রস্তুত থেকো, জলে যেন ছায়া না পড়ে মেঘ বা গাছের। তেরোই জুলাই এলে না। জ্বর হয়েছিল? বাড়িতে তো ছিল টেলিফোন জানালে পারতে। থার্মোমিটার সাজতাম। নীলিমাকে ছুঁয়ে পাখি হতো পরিতৃপ্ত।

Read More »

কথোপকথন – ২১ -পূর্ণেন্দু পত্রী

তোমাদের ওখানে এখন লোডশেডিং কি রকম? -বোলো না। দিন নেই, রাত নেই, জ্বালিয়ে মারছে। -তুমি তখন কী করো? -দরজা খুলে দিই জানালা খুলে দিই র্প দা খুলে দিই। আজকাল হাওয়াও হয়েছে তেমনি ফন্দিবাজ । যেমনি অন্ধকার, অমনি মানুষের ত্রিসীমানা ছেড়ে দৌড় -তুমি তখন কি করো? -গায়ে জামা-কাপড় রাখতে পারি না। ...

Read More »

কথোপকথন -১৮ -পূর্ণেন্দু পত্রী

হ্যালো, হ্যালো কখন আসছ তুমি ? কোথায় মেঘ ? কোথাও মেঘ নেই । হ্যালো,হ্যালো,বৃষতি যদি নামে ? ভিজবে,হ্যালো ভিজবো,অনায়াসে গাছপালারা যেমন করে ভেজে ভিজলে তৃণ রাজার ছেলে হয় হ্যালো,হ্যালো বলছি ভিজবো জলে ভেজা মাঠির গন্ধ হবে তুমি আমি তাতে ছড়াবো ডালপালা। শুনতে পাচ্ছো ? হ্যালো হ্যালো হ্যালো বেরিয়ে পড়,আকাশে রামধনু ...

Read More »
DMCA.com Protection Status