Breaking News
Home / বাংলা কবিতা (কবিদের তালিকা অনুযায়ী) / শক্তি চট্টোপাধ্যায় (page 2)

শক্তি চট্টোপাধ্যায়

শক্তি চট্টোপাধ্যায় (Shakti Chattopadhyay) ছিলেন একজন বাঙ্গালি কবি,লেখক, ওপন্যাসিক। শক্তি চট্টোপাধ্যায় ১৯৩৩ সালের ২৭ নভেম্বর পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার জয়নগরে জন্মগ্রহণ করেন। জীবনানন্দ উত্তর সময়ে তাকে সবচেয়ে শক্তিমান কবি হিসেবে ধরে নেওয়া হয়। তিনি কবিদের হাংরি আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তি। যেতে পারি, কিন্তু কেন যাবো? একবার তুমি, অবনী বাড়ি আছো, চাবি, মনে মনে বহুদূর চলে গেছি ইত্যাদি শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের বিখ্যাত কবিতা (Poem)।

কঠিন অনুভব __শক্তি চট্টোপাধ্যায়

চারধারে তার উপঢৌকন, কিন্তু আছে স্থির, দুহাত মুঠিবদ্ধ কিন্তু ভিতরে অস্থির। কেউ তাকে দ্যাখেনি হতে, উচিত ভেবে সব ফিরিয়ে দিল, তার ছিলো এক কঠিন অনুভব।

Read More »

জন্মদিনে __শক্তি চট্টোপাধ্যায়

জন্মদিনে কিছু ফুল পাওয়া গিয়েছিলো। অসম্ভব খুশি হাসি গানের ভিতরে একটি বিড়াল একা বাহান্নটি থাবা গুনে গুনে উঠে গেলো সিঁড়ির উপরে লোহার ঘোরানো সিঁড়ি, সিঁড়ির উপরে সবার অলক্ষ্যে কালো সিঁড়ির উপরে। শুধু আমিই দেখেছি তার দ্বিধান্বিত ভঙ্গি তার বিষণ্ণতা। জন্মদিনে কিছু ফুল পাওয়া গিয়েছিলো এখন শুকিয়ে গেছে।

Read More »

শিশিরভেজা শুকনো খর __শক্তি চট্টোপাধ্যায়

শিশিরভেজা শুকনো খর শিকড়বাকড় টানছে মিছুবাড়ির জনলা দোর ভিতের দিকে টানছে প্রশাখাছাড় হৃদয় আজ মূলের দিকে টানছে ভাল ছিলুম জীর্ণ দিন আলোর ছিল তৃষ্ণা শ্বেতবিধুর পাথর কুঁদে গড়েছিলুম কৃষ্ণা নিরবয়ব মূর্তি তার, নদীর কোলে জলাপাহার … বনতলের মাটির ঘরে জাতক ধান ভানছে শুভশাঁখের আওয়াজ মেলে জাতক ধান ভানছে করুণাময় ঊষার ...

Read More »

সন্ধ্যায় দিলো না পাখি __শক্তি চট্টোপাধ্যায়

শালিখের ডাকে আমি হয়েছি বাহির রোজ ঘর থেকে পাতায় লুকায় সে যে ডেকে জনশূন্য অথচ নিবিড় এ-উঠানে শালিখেরই ভিড়! দুপুরে শালিখের হাতে ভাসিয়ে দিয়েছি অকস্মাতে চেতনার পাখা– ডাকের আড়ালে তার বেদনাই রাখা। সন্ধ্যায় দিলো না আর প্রতি ডাকে সারা শালিখের দল আমার জীবন যেন শ্রুতির নিষ্ফল প্রবাসের পাড়া সন্ধ্যায় দিলো ...

Read More »

সেই হাত __শক্তি চট্টোপাধ্যায়

অভিনব দুটি হাতে দেয়াল দরোজা খুলে দাও। ততক্ষণে রোদ্দুর পৌচেছে গোটারাত ঘুরে ঘুরে রোদ্দুর পৌঁচেছে ঘরে। কিছুটা নড়বড়ে ছিলো ঘর। এককোণে পাথর তেমন সন্তুষ্ট নয়, ‘দখল দখল শব্দ করে। দাবি তার ঘরটি ভরাবে মানুষের মাথায় চড়াবে তার ভার। আর যদি পারে গিলে খাবে মানুষের স্বপ্ন নিয়ে বাঁচা অন্ধকারে! তা কি ...

Read More »

ছিন্ন বিচ্ছিন্ন – ০১ __শক্তি চট্টোপাধ্যায়

ছোট্ট হয়েই আছে আমার, না হয় তোমার, না হয় তাহার বুকের কাছে দুঃখ নিবিড় একটি ফোঁটায় – দুঃখ চোখের জলে দুঃখ থাকে ভিখারিনীর একমুঠি সম্বলে। ছোট্ট হয়েই আছে একের, না হয় বহুর, না হয় ভিড়ের বুকের কাছে। একটি ঝিনুক তাকে জন্ম থেকেই, একটু-আধটু, বাইরে ফেলে রাখে।

Read More »

ছিন্নবিচ্ছিন্ন __শক্তি চট্টোপাধ্যায়

তুমুল বৃষ্টিতে সব পাতা ভিজে গেলো এখনই শুকাতে হবে রোদ্দুর কোথায়? তিজেলে চড়াতে হবে অন্ন, তা কোথায়? মানুষ বৃষ্টিতে ভিজে শুকাতেও জানে। এই অন্ন, পাতা-পত্র, এর অন্য মানে।

Read More »

আপন মনে __শক্তি চট্টোপাধ্যায়

আমার ভিতর ঘর করেছে লক্ষ জনায়– এবং আমায় পর করেছে লক্ষ জনে এখন আমার একটি ইচ্ছে, তার বেশি নয় স্বস্তিতে আজ থাকতে দে না আপন মনে। লক্ষ জনে আমার ভিতর ঘর করেছে, লক্ষ জনে পর করেছে। আমার একটি ইচ্ছা, স্বগতোক্তির মতো–আপন মনে থাকার। যারা থাকতে দিচ্ছে না, তাদের কাছে আমার ...

Read More »

একবার তুমি – শক্তি চট্টোপাধ্যায়

একবার তুমি ভালোবাসতে চেষ্টা কর– দেখবে, নদির ভিতরে, মাছের বুক থেকে পাথর ঝরে পড়ছে পাথর পাথর পাথর আর নদী-সমুদ্রের জল নীল পাথর লাল হচ্ছে, লাল পাথর নীল একবার তুমি ভাল বাসতে চেষ্টা কর । বুকের ভেতরে কিছু পাথর থাকা ভাল–ধ্বনি দিলে প্রতিধ্বনি পাওয়া যায় সমস্ত পায়ে-হাঁটা পথই যখন পিচ্ছিল, তখন ...

Read More »

তুচ্ছ, তুচ্ছ এইসব __শক্তি চট্টোপাধ্যায়

তুচ্ছ এইসব–এই জানালা কপাট গোরস্থান তুচ্ছ, তুচ্ছ এইসব, ভালোবাসা, ভালো-মন্দে বাসা তুচ্ছ, তুচ্ছ, এইসব জানালা কপাট গোরস্থান… তারপর, কে আছো মন্দিরে? মন্দিরে ভিতে কি ফড়িং? ভালোবাসা মানে এক হিম অন্ধকার খুঁজে নিয়ে পুঁতে ফেলা অশ্লীল ডালিম তারপর, কে আছো মন্দিরে? আমি যাই ভিত্তি খুঁড়ে খুঁড়ে আমি যাই ভিত্তি খুঁড়ে খুঁড়ে…

Read More »
DMCA.com Protection Status