Home / বাংলা কবিতা (কবিতার বিষয় অনুযায়ী) / মুক্তিযুদ্ধের কবিতা

মুক্তিযুদ্ধের কবিতা

মুক্তিযুদ্ধের কবিতা (Muktijuddher Kobita): ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধকে বলা হয় মুক্তিযুদ্ধ। আর এই মুক্তিযুদ্ধকে কেন্দ্র করে যে কবিতা লেখা হয় তাই হলো মুক্তিযুদ্ধের কবিতা। মুক্তিযুদ্ধের কবিতার মূল বিষয়বস্তু হলো মুক্তিযুদ্ধের ঘটনা, চেতনা, স্মৃতি, দুঃখ কষ্ট, আবেগ অনুভূতি, অভিজ্ঞতা ইত্যাদি। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয় ১৯৭১ সালের ২৬ শে মার্চ। টানা ৯ মাস যুদ্ধের পর ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীনের মাধ্যমে এ যুদ্ধের পরিসমাপ্তি ঘটে। যদিও বাংলাদেশ স্বাধীন হয় ১৯৭১ সালে তবে এ দেশের স্বাধীনতা বা মুক্তির জন্য দেশের কবিরা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে কবিতা লিখে দখলদার বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ শুরু করে দেশ ভাগের পর থেকেই। যুদ্ধ শেষ হয়ে গেলেও এখনও শেষ হয়ে যায় নি মুক্তিযুদ্ধের কবিতা বা মুক্তিযুদ্ধকে নিয়ে কবিতা লেখা। এখনও কবিদের হাতে রচিত হয়ে যাচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি নিয়ে নানান কবিতা।

সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড – অ্যালেন গিন্সবার্গ

শত শত চোখ আকাশটা দেখে, শত শত শত মানুষের দল, যশোর রোডের দুধারে বসত বাঁশের ছাউনি কাদামাটি জল। কাদামাটি মাখা মানুষের দল, গাদাগাদি করে আকাশটা দেখে, আকাশে বসত মরা ইশ্বর, নালিশ জানাবে ওরা বল কাকে। ঘরহীন ওরা ঘুম নেই চোখে, যুদ্ধে ছিন্ন ঘর বাড়ী দেশ, মাথার ভিতরে বোমারু বিমান, এই ...

Read More »

বাতাসে লাশের গন্ধ – রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ

আজো আমি বাতাসে লাশের গন্ধ পাই আজো আমি মাটিতে মৃত্যূর নগ্ননৃত্য দেখি, ধর্ষিতার কাতর চিৎকার শুনি আজো আমি তন্দ্রার ভেতরে… এ দেশ কি ভুলে গেছে সেই দু:স্বপ্নের রাত, সেই রক্তাক্ত সময় ? বাতাসে লাশের গন্ধ ভাসে মাটিতে লেগে আছে রক্তের দাগ। এই রক্তমাখা মটির ললাট ছুঁয়ে একদিন যারা বুক বেঁধেছিলো। ...

Read More »

শহীদদের প্রতি __আসাদ চৌধুরী

তোমাদের যা বলার ছিল বলছে কি তা বাংলাদেশ ? শেষ কথাটি সুখের ছিল ? ঘৃণার ছিল ? নাকি ক্রোধের, প্রতিশোধের, কোনটা ছিল ? নাকি কোনো সুখের নাকি মনে তৃপ্তি ছিল এই যাওয়াটাই সুখের। তোমরা গেলে, বাতাস যেমন যায় গভীর নদী যেমন বাঁকা স্রোতটিকে লুকায় যেমন পাখির ডানার ঝলক গগনে মিলায়। ...

Read More »

স্বাধীনতা, এই শব্দটি কীভাবে আমাদের হলো – নির্মলেন্দু গুণ

একটি কবিতা লেখা হবে তার জন্য অপেক্ষার উত্তেজনা নিয়ে লক্ষ লক্ষ উন্মত্ত অধীর ব্যাকুল বিদ্রোহী শ্রোতা বসে আছে ভোর থেকে জনসমুদ্রের উদ্যান সৈকতে: ‘কখন আসবে কবি?’ এই শিশু পার্ক সেদিন ছিল না, এই বৃক্ষে ফুলে শোভিত উদ্যান সেদিন ছিল না, এই তন্দ্রাচ্ছন্ন বিবর্ণ বিকেল সেদিন ছিল না৷ তা হলে কেমন ...

Read More »

অভিশাপ দিচ্ছি – শামসুর রাহমান

আজ এখানে দাড়িয়ে এই রক্ত গোধূলিতে অভিশাপ দিচ্ছি। আমাদের বুকের ভেতর যারা ভয়ানক কৃষ্ঞপক্ষ দিয়েছিলো সেঁটে, মগজের কোষে কোষে যারা পুতেছিলো আমাদেরই আপনজনের লাশ দগ্ধ, রক্তাপ্লুত, যারা গনহত্যা করেছে শহরে গ্রামে টিলায় নদীতে ক্ষেত ও খামারে আমি অভিশাপ দিচ্ছি নেকড়ের চেয়েও অধিক পশু সেই সব পশুদের। ফায়ারিং স্কোয়াডে ওদের সারিবদ্ধ ...

Read More »

স্বাধীনতা তুমি – শামসুর রাহমান

স্বাধীনতা তুমি রবিঠাকুরের অজর কবিতা, অবিনাশী গান। স্বাধীনতা তুমি কাজী নজরুল ঝাঁকড়া চুলের বাবরি দোলানো মহান পুরুষ, সৃষ্টিসুখের উল্লাসে কাঁপা- স্বাধীনতা তুমি শহীদ মিনারে অমর একুশে ফেব্রুয়ারির উজ্জ্বল সভা স্বাধীনতা তুমি পতাকা-শোভিত শ্লোগান-মুখর ঝাঁঝালো মিছিল। স্বাধীনতা তুমি ফসলের মাঠে কৃষকের হাসি। স্বাধীনতা তুমি রোদেলা দুপুরে মধ্যপুকুরে গ্রাম্য মেয়ের অবাধ সাঁতার। ...

Read More »

তোমাকে পাওয়ার জন্যে, হে স্বাধীনতা – শামসুর রাহমান

তোমাকে পাওয়ার জন্যে, হে স্বাধীনতা, তোমাকে পাওয়ার জন্যে আর কতবার ভাসতে হবে রক্তগঙ্গায় ? আর কতবার দেখতে হবে খাণ্ডবদাহন ? তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা, সাকিনা বিবির কপাল ভাঙলো, সিঁথির সিঁদুর গেল হরিদাসীর। তুমি আসবে ব’লে, হে স্বাধীনতা, শহরের বুকে জলপাইয়ের রঙের ট্যাঙ্ক এলো দানবের মত চিৎকার করতে করতে তুমি ...

Read More »
DMCA.com Protection Status